উপস্থাপনঃ

ডার্মোমিক্স ক্রিমঃ প্রতি গ্রাম ক্রিমে রয়েছে ক্লোবেটাসল প্রোপিওনেট বিপি ০.৫০ মিগ্রা., ওফ্লক্সাসিন ইউএসপি ৭.৫০ মিগ্রা. ওর্নিডাজোল আইএনএন ২০ মিগ্রা., টার্বিনাফিন হাইড্রোক্লোরাইড বিপি ১০ মি.গ্রা.।

বিবরণঃ ডার্মোমিক্স একটি মাল্টিপল কম্বিনেশন ক্রিম যার রয়েছে এন্টি ব্যাকটেরিয়াল, এন্টি প্রোটোজোয়াল, এন্টি ফাংগাল এবং ইনফ্লামেশনের জন্য স্টেরয়েড বিশিষ্ট। ওফ্লক্সাসিন এবটি ব্রড স্পেকট্রাম এন্টিবায়োটিক যা গ্রাম পজেটিভ এবং গ্রাম নেগেটিভ ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে কার্যকর। ওর্নিডাজোল একটি নাইট্রোইমিডাজোল গ্রুপের এন্টিবায়োটিক যা এমিবা এবং ট্রাইকোমোনাস ইনফেকশনে কার্যকর। টার্বিনাফিন একটি টপিক্যাল এন্টি ফাংগাল এবং এন্টিপ্যারাসাইটিক ঔষধ। ক্লোবেটাসল একটি কার্যকরী কর্টিকোস্টেরয়েড যার এন্টি-ইনফ্ল্যামেটরী, এন্টি প্রুরাইটিক এবং ভ্যাসোকন্সট্রিকশন বৈশিষ্ট রয়েছে।

নির্দেশনাঃ ডার্মোমিক্স ক্রিম একজিমা, ডার্মাটাইটিস, টিনিয়া ইনফেকশন, ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন এবং স্কাল্প সোরিয়াসিসের জন্য নির্দেশিত।

মাত্রা ও বিধিঃ আক্রান্ত স্থানে দিনে ২ বার ব্যবহার করতে হবে এবং ত্বকে মৃদুভাবে মাখতে হবে।

পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়াঃ ত্বকের জালাপোড়া, চুলকানো, অস্বস্তি, চামড়ায় শুষ্কতাজনিত একজিমা হতে পারে।

সতর্কতাঃ মুখে খাওয়ার জন্য নয়। শুধুমাত্র বাহ্যিক ব্যবহারের জন্য।

প্রতিনির্দেশনাঃ যেসব রোগীর ডার্মোমিক্স ক্রিমের কোনো উপাদানের প্রতি সংবেদনশীলতা রয়েছে তাদের ক্ষেত্রে এটি প্রতিনির্দেশিত।

গর্ভাবস্থা ও স্তন্যদানকালে ব্যবহারঃ গর্ভাবস্থা ও স্তন্যদানকালে এর নিরাপদ ব্যবহার এখনো প্রতিষ্ঠিত হয়নি।

ড্র্রাগ ইন্টার‌্যাকশনঃ এখনো কোনো ক্ষতিকারক ড্রাগ ইন্টার‌্যাকশনের তথ্য পাওয়া যায়নি।

মাত্রাধিক্যঃ তীব্র মাত্রাধিক্যতা ঘটার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। তবে ক্রনিক মাত্রাধিক্যতায় অথবা অপব্যবহারের ক্ষেত্রে হাইপারকর্টিসলিজম এর লক্ষন দেখা দিতে পারে।

সংরক্ষনঃ ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের উপরে সংরক্ষন করা থেকে বিরত থাকুন। আলো থেকে দূরে এবং শিশুদের নাগালের বাইরে রাখুন। হিমায়িত করা যাবে না।

বানিজ্যিক মোড়কঃ ডার্মোমিক্স ক্রীমঃ প্রতিটি টিউবে রয়েছে ১৫ গ্রাম ক্রিম।