উপস্থাপনঃজাট্রাল ইআর ট্যাবলেটঃ নীল, গোলাকৃতির, ফিল্ম আবরিত ট্যাবলেট; প্রতিটি এক্সটেনডেড রিলিজ ট্যাবলেটে রয়েছে আলফুজোসিন হাইড্রোক্লোরাইড ইউএসপি 10 মিগ্রা.।
নির্দেশনাঃ
বিনাইন প্রোস্টেটিক হাইপারপ্লাসিয়া (বিপিএইচ) এর কার্যকরী লক্ষণসমূহের চিকিৎসায় নির্দেশিত।
মাত্রা ও প্রয়োগঃ জাট্রাল ইআর (আলফুজোসিন হাইড্রোক্লোরাইড) ট্যাবলেট সম্পূর্ন গলধঃকরণ করা উচিত।
বিপিএইচঃ নির্দেশিত মাত্রা হচ্ছে খাবার গ্রহণের পর দৈনিক ১০ মিগ্রা (একটি জাট্রাল ট্যাবলেট।)
এইউআরঃ ৬৫ বছর এবং এর অধিক বয়স্ক রোগীদের ক্ষেত্রে ক্যাথেটারাইজেশনের প্রথম দিন থেকে খাবারের পর দৈনিক ১০ মিগ্রা. (একটি জাট্রাল ট্যাবলেট) গ্রহণ করা উচিত। চিকিৎসাটি ক্যাথেটারাইজেশনের ২-৩ দিন এবং ক্যাথেটার অপসারণের পরবর্তী ১ দিন সহ সর্বমোট ৩-৪ দিন প্রয়োগ করা উচিত। ৬৫ বছরের কম বয়স্ক রোগী অথবা ৪ দিনের বেশি চিকিৎসা বর্ধিত করার ক্ষেত্রে এই নির্দেশনায় সুবিধা পাওয়ার কোন প্রতিষ্ঠিত তথ্য নেই।
শিশুদের ক্ষেত্রেঃ ২-১৬ বছর বয়সের শিশুদের ক্ষেত্রে জাট্রাল এর ফলপ্রসুতা প্রদর্শিত হয়নি। অতএব জাট্রাল শিশুদের ক্ষেত্রে ব্যবহারের জন্য নির্দেশিত নয়।
বিরুদ্ধ ব্যবহারঃ
আলফুজোসিন হাইড্রোক্লোরাইড এর প্রতি অতি সংবেদনীশলতা, অর্থোস্ট্যাটিক হাইপোটেনশন এর ইতিহাস বিদ্যমান, অন্যান্য আলফা-১ রিসেপ্টর ব্লকার এর সমন্বয়ে এবং যকৃতের অপ্রতুলতার ক্ষেত্রে জাট্রাল ট্যাবলেট এর ব্যবহার নিষিদ্ধ।
সতর্কতা ও সাবধানতাঃ
সকল আলফা-১ ব্লকারের ক্ষেত্রেই কিছু নির্দিষ্ট রোগী যারা এন্টিহাইপারটেনসিভ অথবা নাইট্রেট গ্রহণ করছেন, তাদের ক্ষেত্রে ঔষধ গ্রহণের কয়েক ঘন্টার মধ্যে শারিরীক পরিবর্তনের হেতু রক্তের নিম্নচাপসহ অথবা লক্ষনবিহীন (ঝিমুনী, ক্লান্তি, ঘামা) অবস্থা পরিলক্ষিত। এসকল ক্ষেত্রে লক্ষনসমূহ সম্পূর্ণরুপে চলে না যাওয়া পর্যন্ত রোগীদের শুয়ে থাকা উচিত। এই প্রভাব ক্ষণস্থায়ী চিকিৎসা শুরুর সময় ঘটে এবং সাধারণত চিকিৎসার ধারাবাহিকতাকে প্রতিরোধে করেনা। এই ধরণের সম্ভাব্য ঘটনা ঘটার বিষয়টি রোগীদেরকে সতর্ক করে দেয়া উচিত। অন্যান্য সকল আলফা-১ রিসেপ্টর ব্লকারের মত তীব্র হৃদসম্বন্ধীয় অকার্যকরী রোগীদের ক্ষেত্রে জাট্রাল সতর্কতার সাথে ব্যবহার করা উচিত। অন্য আলফা-১ ব্লকার ব্যবহারের ফলে যেসকল রোগীর অধিক নিম্ন রক্তচাপের প্রকোপ আছে তাদের ক্ষেত্রে জাট্রাল সতর্কতার সাথে গ্রহণ করতে হবে। আলফা-১ ব্লকারের প্রতি অতিসংবেদনশীলতা আছে, এমন রোগীদের ক্ষেত্রে চিকিৎসা ধীরে ধীরে শুরু করতে হবে। এন্টিহাইপারটেনসিভ দিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন এমন রোগীদের ক্ষেত্রে জাট্রাল সাবধানতার সাথে গ্রহণ করা উচিত। যেসকল রোগীর জন্মগত কিউটিসির ইতিহাস রয়েছে, অথবা যারা কিউটিসির ব্যবধান বৃদ্ধির জন্য ঔষধ গ্রহন করছেন সে সকল রোগীদের ক্ষেত্রে জাট্রাল ঔষধ গ্রহণের পূর্বে এবং ব্যবহার কালীন সময়ে মুল্যায়ন করা উচিত। করোনারী রোগীদের ক্ষেত্রে, করোনারী অপ্রতুলতার জন্য নির্দিষ্ট চিকিৎসা অব্যহত রাখা উচিত। যদি এনজাইনা পেকটোরিস পুনআবির্ভুত হয় অথবা এর থেকেও খারাপ কিছু হয়, তাহলে জাট্রাল ব্যবহার বন্ধ করা উচিত। মারাত্নক বৃক্ক অকার্যকরী রোগীদের ক্ষেত্রে নিরাপত্তাজনিত ক্লিনিক্যাল তথ্য না থাকার কারণে এই শ্রেণীর রোগীদের জাট্রাল ১০ মিগ্রা. এর প্রোলোংড রিলিজড ট্যাবলেট প্রয়োগ করা উচিত নয়। রোগীদের সতর্ক করে দিতে হবে যেন, ট্যাবলেটটি সম্পূর্ণরুপে গলাধ:করণ করে। অন্য কোনো উপায়, যেমন মচমচে শব্দে চিবানো, চাপ দিয়ে ভেঙ্গে গুড়ো করে, চর্বন, গুড়ো করে অথবা গুড়ো গুড়ো করে গ্রহণ নিষিদ্ধ করা উচিত। এর ফলে ঔষধের রিলিজ এবং শোষন অপর্যাপ্ত হতে পারে এবং প্রাথমিক অবস্থাতেই সম্ভাব্য বিরুপ প্রতিক্রিয়া ঘটতে পারে। পূর্বে আলফা ব্লকার দিয়ে চিকিৎসা নিয়েছেন অথবা চোখের অস্ত্রপচারের সময় কিছ ‍রোগীদের ক্ষেত্রে “ইন্ট্রাঅপারেটিভ ফ্লপি আইরিস সিনড্রোমঃ পরিলক্ষিত হয়। আলফা-১ ব্লকার এর বর্তমান বা অতীতের ব্যবহার সম্পর্কে চোখের অস্ত্রোপচারের আগেই চক্ষু চিকিৎসককে অবহিত করা উচিত, কারণ আইএফআইএস পদ্ধতিগত জটিলতা বাড়াতে পারে যদিও জাট্রাল এর ক্ষেত্রে এই ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা খুবই কম। এজন্য চক্ষু চিকিৎসককে তাদের সম্ভাব্য অস্ত্রোপচারের কৌশল পরিবর্তনের জন্য প্রস্তত থাকা উচিত। জাট্রাল ১০ মিগ্রা. প্রোলোঙ্গড রিলিজড ট্যাবলেট এ হাইড্রোজেনেটেড ক্যাস্টর অয়েল থাকার কারণে পেট খারাপ এবং পাতলা পায়খানা হতে পারে।
অন্যান্য ঔষধের সাথে আন্তঃক্রিয়াঃ
সমন্বয়ের বিরুদ্ধে ব্যবহারঃ আলফা-১ রিসেপ্টর ব্লকার।
সমন্বয়ের ক্ষেত্রে বিবেচনায় রাখতে হবেঃ এন্টিহাইপারটেনসিভ ঔষধসমূহ, নাইট্রেটস, শক্তিশালী সিওয়াইপি ৩এ৪ ইনহিবিটরস যেমন কিটোকোনাজল, ইট্রাকোনাজল এবং রিটোনাভির। দৈনিক একক মাত্রায় ভরা পেটে (উচ্চ চর্বিযুক্ত খাবার) ৭ দিন ২০০ মিগ্রা. কিটোকোনাজল পুনঃপুন প্রয়োগের ফলে সিম্যাক্স ২.১ গুণ বৃদ্ধি পায়। অন্যান্য পরিমাপক যেমন টিম্যাক্স এবং টি ১/২ এর কোন পরিবর্তন হয় না। দৈনিক ৪০০ মিগ্রা. এর কিটোকোনাজল পুন:পুন যথাক্রমে ৮ দিনের মাত্রায়, ভরাপেটে যখন জাট্রাল ১০ মিগ্রা. এর একক মাত্রার সাথে প্রয়োগ করা হয় তখন সিম্যাক্স এবং এইউসি বৃদ্ধি পায় ২.৩ গুণ এবং ৩.০ গুণ। আলফুজোসিন হাইড্রোক্লোরাইড গ্রহণকারী রোগীদের সাধারণ চেতনানাশক ঔষধ প্রয়োগে রক্তে গভীর নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে। অস্ত্রোপচারের ২৪ ঘন্টা আগে এই ট্যাবলেট প্রত্যাহার করা বাঞ্চনীয়।
অন্যান্য ধরণের আন্তঃক্রিয়াঃ স্বাস্থ্যবান স্বেচ্ছাসেবকদের ক্ষেত্রে জাট্রাল এবং নিম্নলিখিত ঔষধসমূহ: ওয়ারফারিন, ডিগক্সিন, হাইড্রোক্লোরোথায়াজাইড এবং এটিনোলল এর মধ্যে কোন ধরণের ফার্মাকোডাইনামিক অথবা ফার্মাকোকাইনেটিক আন্তঃক্রিয়া পরিলক্ষিত হয়নি।
গর্ভাবস্থায় ও স্তন্যদানকালে ব্যবহারঃ
এই ধরণের নির্দেশনায় ইহা প্রযোজ্য নয়।
পার্শ প্রতিক্রিয়াঃ প্রত্যাশিত শ্রেণী বিভাগের সংখ্যা: খুবই সাধারণ (<১/১০), সাধারণ (<১/১০০ থেকে <১/১০), সাধারণ নয় (<১/১০০০ থেকে <১/১০০), বিরল (<১/১০০০০ থেকে <১/১০০০), খুবই বিরল (<১/১০০০০) অজানা (পাওয়া তথ্য থেকে অনুমান করা যায় না।) প্রতিটি শ্রেণীতে অনাকাঙ্খিত প্রভাবগুলো গভীরতার ভিত্তিতে উপস্থাপিত হল: স্নায়ুতন্ত্রজনিত ব্যাধিঃসাধারণ: নির্জীবতা, মাথা ঘোরা, মাথা ব্যাথা। সাাদারণ নয়: রক্তচাপের নিম্নতাহেতু সাময়িক সংজ্ঞাহীনতা, ঘূর্ণিরোগ, অসুস্থতাবোধ, ঝিমানো।
চক্ষুজনিত ব্যাধিঃ সাধারণ নয়: অস্বাভাবিক দৃষ্টি, অজানা , ইন্ট্রাঅপারেটিভ ফ্লপি আইরিস সিনড্রোম।
হৃদযন্ত্রজনিত ব্যাধিঃ সাধারণ নয়: ট্যাকিকার্ডিয়া, বুক ধড়ফড়, নিম্ন রক্তচাপ। খুবই বিরল: এনজাইনা পেকটোরিস এর নতুন সুত্রপাত, প্রকোপ বৃদ্ধি বা পুনরাবৃত্তি ঘটতে পারে যে সকল রোগীদের পূর্বে করোনারী আর্টারী সংক্রান্ত রোগ বিদ্যমান।
অতিমাত্রাঃ
অতিমাত্রার ক্ষেত্রে: রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে, চিত করে শুইয়ে রাখতে হবে এবং নিম্ন রক্তচাপের জন্য যে প্রচলিত চিকিৎসা আছে তা প্রদান করতে হবে। মারাত্মক নিম্ন রক্তচাপের ক্ষেত্রে, যথাযথ সঠিক চিকিৎসা হিসেবে ভেসোকন্সট্রিক্টর জাতীয় ঔষধ ব্যবহার করা যেতে পারে যা ভাসকুলার পেশী তন্তর উপর কাজ করে।
ঔষধ বিষয়ক সতর্কতাঃ
আলো থেকে দূরে, ঠান্ডা ও শুকনো স্থানে সংরক্ষন করুন।
সরবরাহঃ
জাট্রাল ই-আর ট্যাবলেট: প্রতি কার্টুনে অ্যালু-অ্যালু ব্লিস্টারে ৩০ টি ট্যাবলেট।

অথবা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী সেব্য।
তাছাড়া স্বাস্থ্য সংক্রান্ত যেকোন তথ্য জানতে যোগাযোগ করুন, “সুরক্ষা”র কর্মীদের সাথে অথবা ফেসবুক থেকে প্রশ্ন করুন ঔষধবার্তা
অথবা ডায়াল করুন +8801688691735 অথবা +8801623875729 নাম্বারে। জরুরী মুহুর্তে যেকোন স্বাস্থ্য সেবা পেতে গুগল প্লে-স্টোর থেকে ডাউনলোড করুন Shurokkha এপস টি।
এপস ডাউনলোড করুন এখান থেকে।