কাউন্সিলিংয়ের জন্য জেনে নিন-
১. গর্ভাবস্থায় করোনাভাইরাস আক্রান্ত হলে নির্ধারিত সময়ের পূর্বে অপরিণত নবজাতক জন্মের সম্ভাবনা থাকে এবং নবজাতকের স্বাস্থ্যঝুঁকি বৃদ্ধি পায়।
২. সাধারণ নারীদের তুলনায় গর্ভবতী নারীর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হবার ঝুঁকি বেশি থাকে।
৩. স্তন্যদানকারী নারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে মা ও শিশু দুজনেই ঝুঁকির সম্মুখিন হয়।
৪. গর্ভধারণের পূর্বে, গর্ভাবস্থায় অথবা শিশুকে স্তন্যদানের সময়কালে টিকা গ্রহণের ফলে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হবার অথবা আক্রান্ত হলেও স্বাস্থ্যঝুঁকি বৃদ্ধির সম্ভাবনা কম থাকে।